তিনি ছিলেন চলচ্চিত্রের অভিভাবক : সুচন্দা

‘পাকিস্তান আমল থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ৩০টি ছবিতে আমরা জুটি বেঁধে কাজ করেছি। জীবনের সুন্দর দিনগুলো আমরা একসঙ্গে এফডিসিতে শুটিং করে কাটিয়েছি, গল্প করেছি, আড্ডা দিয়েছি, ঝগড়া করেছি, সুখ-দুঃখ ভাগাভাগি করেছি। চলচ্চিত্রের জন্য এক হয়ে কাজ করেছি। শুটিং না থাকলেও আমরা শুধু আড্ডা দেওয়ার জন্য এফডিসিতে ছুটে এসেছি। আজ এই এফডিসিতেই তাঁকে বিদায় জানাতে বড় কষ্ট হচ্ছে।’ কথাগুলো বলছিলেন নায়করাজ রাজ্জাকের প্রথম নায়িকা কোহিনূর আক্তার সুচন্দা।

আজ এফডিসিতে রাজ্জাকের জানাজা শেষে সুচন্দা যখন স্মৃতিচারণ করছিলেন, তখন তাঁর চোখ দিয়ে গড়িয়ে পড়ছিল বন্ধু ও সহকর্মী হারানোর অশ্রু। বলছিলেন, ‘দেশ স্বধীন হওয়ার পর তিনি নিজের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান করেছিলেন, সেখানে আমিও বেশ কয়েকটি ছবিতে অভিনয় করেছি। অনেক কাছ থেকে দেখেছি চলচ্চিত্র নিয়ে কীভাবে কাজ করেছেন তিনি, চলচ্চিত্রের স্বর্ণালি দিন তৈরি করতে কতটা কষ্ট করতে হয়েছে তাঁকে। আজ তাঁর এই স্মৃতিগুলো মনে করতে অনেক বেশি কষ্ট হচ্ছে।’

রাজ্জাক শুধু বন্ধু ছিলেন না, ছিলেন অভিভাবক। সুচন্দা বলেন, ‘তিনি চলে গেলেন, মনে হলো আমরা পরিবারের একজন অভিভাবক হারিয়েছি। উনার পরিবারের সঙ্গে আমাদের পরিবারের বাড়তি একটা সম্পর্ক ছিল। কারণ, আমি চলচ্চিত্রে এসেছি জহির রায়হানের হাত ধরে, সেই জহির রায়হানের হাত ধরেই নায়করাজও চলচ্চিত্রে কাজ করেছেন। উনার সঙ্গে আমি জুটি বেঁধে কাজ করেছি। তিনি শুধু আমাদের পরিবারের অভিভাবক ছিলেন না, তিনি ছিলেন চলচ্চিত্রের অভিভাবক। আমরা শুধু একজন নায়ক নয়, একজন পিতাকে হারালাম। যিনি আমাদের মাথার মুকুট হয়ে এত দিন ছিলেন।’

নায়করাজ রাজ্জাকের মরদেহ আজ বেলা ১১টায় এফডিসিতে আনা হয়। সেখানে ভিড় করেন রাজ্জাকের দীর্ঘদিনের সহকর্মীরা। এ সময় রাজ্জাককে শেষ বিদায় জানাতে উপস্থিত হন গীতিকার ও চলচ্চিত্র পরিচালক গাজী মাজহারুল আনোয়ার, চিত্রনায়ক আলমগীর, চলচ্চিত্র পরিচালক মনতাজুর রহমান আকবর, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ম. হামিদ, চলচ্চিত্র পরিচালক মোরশেদুল ইসলাম, অভিনেতা মিশা সওদাগর, চিত্রনায়ক রুবেল, জায়েদ খান, ওমর সানীসহ চলচ্চিত্রাঙ্গনের বিভিন্ন শ্রেণির মানুষ। শ্রদ্ধাঞ্জলি শেষে প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

গতকাল সোমবার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে সন্ধ্যা সোয়া ৬টায় মারা যান মহাতারকা রাজ্জাক।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: